Thursday, July 26, 2018

***শ্রীগুরু ও ইষ্ট*** শ্রী শ্রী মোহনানন্দ ব্রহ্মচারী***

***শ্রীগুরু ও ইষ্ট*** শ্রী শ্রী মোহনানন্দ ব্রহ্মচারী***


মহারাজ সেবার দিল্লীতে ,গাড়িতে বসে মহারাজের কাছে একটি প্রশ্ন নিবেদন করলাম:-
"শ্রুতি বলছেন,"ব্রহ্মবিদ্যা তাঁরই কাছে প্রকাশিত হবে,যিনি দেবতা ও গুরুতে সমভাবে পরাভক্তি সম্পন্ন হন,

মহারাজ,গুরু ও ইষ্টের প্রতি সমভাবে পরাভক্তি যুক্ত হওয়া কি আদৌ সম্ভবপর?কোনো  তারতম্য কি হতে পারে না?"

আমার এই উত্তরে মহারাজ বললেন,......"এই শ্লোকের অর্থ হচ্ছে,গুরুকে দেবজ্ঞানে ভক্তি করতে হবে."
আমি তখন বললাম,"তাই যদি হয়,তা'হলে ইষ্টদেবতার প্রয়োজন কি?"
তার উত্তরে মহারাজ বললেন,......"রক্ত,মাংসে গড়া দেহবিশিষ্ট গুরুকে এই বিরাট বিশ্বের ঈশ্বর বলে আমরা ভাবতে পারি না,বলে ইষ্টদেবতার প্রয়োজন আছে।"

মহারাজ স্বয়ং  বললেন,.........
"আসল বস্তুটি হচ্ছে, অমূর্ত ----যার  যে মূর্তি অধিক প্রিয় ,সে সেই মূর্তির ধ্যান করতে পারে।  
মহারাজের এই উত্তরে ইঙ্গিত স্পষ্ট : শ্রী গুরু ও ইষ্ট সম্পূর্ণ রূপে অভিন্ন। স্থুল  দৃষ্টিতে গুরু ও ইষ্ট দেবতাকে ভিন্ন বলে মনে হয়,কিন্তু স্বরূপত উভয় ই অভিন্ন। 
*****************************************
পরে দিল্লীর অশোকা হোটেলে।কথা প্রসঙ্গে মহারাজ নিজ দেহের প্রতি অঙ্গুলি নির্দেশ করে বললেন,
              "তোমরা যাকে দেখছো,সেটা নাম রুপাত্ম্ক ---সত্যিকারের গুরুর রূপ হচ্ছে অমূর্ত। 
                      অখন্ডমন্ডলাকারাং ব্যাপ্তম যেন চরাচরাম।
সত্যিকারের ইষ্টদেবতা ও অমূর্ত। "সাধকানাম হিতার্থে ব্রহ্মনো-রূপ কল্পনা। "উপাসনার জন্য আমরা ব্রহ্মের রূপ কল্পনা করি।  শ্রীগুরু ও ইষ্টদেবতা তাই একই পথের ভিন্ন ভিন্ন প্রকাশ।"

=০=০=০=০=০=০=০=০=০=০=০=